ও দয়াল বিচার করো {লেখাটি বাংলায় লিখুন ও বই পোকার কলম পত্রিকায় প্রকাশিত}

আমি তখন পঞ্চম শ্রেণীতে পড়ি। একদিন স্কুল চলা কালীন, আমার বই এর মধ্যে একটা সাদা কাগজ পেলাম। তাতে হাতে লেখা কোন দেবদেবীর মহিমার বিবরণ লেখা ছিল। আর ছিল ঐ লেখা কপি করে দশজনকে বিলি করার নির্দেশ। আগে এই লেখা বিলি করে, কে কী পেয়েছে, এবং বিলি না করায় কে কিভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে, তার বিবরণও ফলাও করে লেখা ছিল। ঠাকুর দেবতার প্রতি আমার কোন দিনই আস্থা নেই, তবু সেই বয়সে ঐ কাগজ বিলি না করার মতো মনের জোর, আমার ছিল না। ঐ দেব বা দেবী কিন্তু খুব দয়ালু ছিলেন। তখনও আমাদের দেশে জেরক্স প্রচলিত হয় নি বলে, মাত্র দশ কপি বিলি করার নির্দেশ দিয়েছিলেন। বাড়ি ফিরে চার-পাঁচটা কপি করে, পরদিন স্কুলে একজন নিরীহ গোছের সহপাঠীর (নামটা আজ আর মনে পড়ে না) ব্যাগে একটা কপি রেখে দিলাম। কিন্তু দু’চারজন ব্যাপারটা দেখে ফেলে। পরে সাধু বাবু ক্লাশে আসলে আমরা ব্যাগ থেকে বই খাতা বার করলাম। সেই ছেলেটা বই বার করতে গিয়ে কাগজটা হাতে পেয়ে, ভ্যাঁ করে কাঁদতে শুরু করলো। সাধু বাবু কান্নার কারণ জানতে চাওয়ায়, সে তাঁকে হাতের কাগজটা দেখালো। এই গর্হিত কাজ কে করেছে এই নিয়ে শ্রেণীকক্ষ উত্তপ্ত হয়ে উঠলে, সাক্ষীরা আমার নাম বলে দেয়। হাতের লেখাও আমার। ফলে সাধু বাবু আমাকে এই অমার্জনীয় অপরাধের জন্য, বেশ কয়েক ঘা প্রহার করে, শ্রেণীকক্ষে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করলেন।

আমি কিন্তু তাঁকে বোঝাতে পারলাম না যে, যে কারণে এই ছেলেটা কাঁদছে, যে কাগজ হাতে পেয়ে বিলি করার ভয় ও ঝামেলায়, ছেলেটা ভীত, সন্ত্রস্ত, গতকাল এই ঘরেই সেই একই কাগজ হাতে পেয়ে, সমবয়সী আমারও একই দশা হয়েছিল। নিজেকে বিপদ মুক্ত করতেই আমাকে অতগুলো কপি করতে হয়েছে, এবং দশজনের মধ্যে কেবল মাত্র একজনকে বিলি করেই, আজকের এই ঘটনা। কাগজের সেই দেব বা দেবীকে কিন্তু আমার চরম বিপদের সময় পাশে পাওয়া গেল না। এই অভিযোগ কাকেই বা জানাই।

 

সুবীর কুমার রায়

২৫-০৩-২০১৭

 

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s